স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতাকে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যার করলো চাচা।

0 8

নোয়াখালীতে সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে নোয়াখালী জেলা শহরে স্বেচ্ছাসেবকলীগের এক নেতাকে হাতুড়ি ও রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার চাচার বিরুদ্ধে।

এই ঘটনায় নিহতের চাচা ইকবাল হোসেনকে (৫০) আটক করেছে পুলিশ।গতকাল সোমবার রাত ৯টার দিকে নোয়াখালী পৌরসভার দত্তের বাড়ী মোড় এলাকার কাশিপুর মহল্লায় এ ঘটনা ঘটে।নিহত মোহাম্মদ আলী প্রকাশ মনু (৩২) কাশিপুর এলাকায় মৃত আকবর আলীর ছেলে।এ ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই আহম্মেদ আলী (২৮) আহত হয়েছে।

তিনি অভিযোগ করেন, ‘চাচার সঙ্গে সম্পত্তি সংক্রান্ত বিরোধ অনেক দিনের। এর জেরে গতকাল রাত ৯টার দিকে মনু একটি দোকানের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় চাচা ও তার সহযোগী শাহাদাত হোসেন, লিটন দাসসহ কয়েকজন তাকে ডেকে একটি দোকানে নিয়ে যায়। এসময় তারা মনুকে আটকে লোহার রড় ও হাতুড়ি দিয়ে শরীরের বিভিন্ন স্থানের এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে।’

নিহতের ছোট ভাই বলেন, ‘খবর পেয়ে আমি ভাইকে উদ্ধার করতে আসলে তারা আমাকেও পিটিয়ে আহত করে। মনুকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাকে এক নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি করে। রাত ১১টার দিকে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।’

শাহিদা বেগম নিহতের মা বলেন, ‘ইকবালদের সঙ্গে আমাদের জমি নিয়ে বিরোধ রয়েছে। এই ঘটনার জের ধরে পরিকল্পিতভাবে আমার ছেলেকে হত্যা করেছে ইকবাল আর তার সন্ত্রাসীরা। আমি সুষ্ঠু বিচার চাই।’নোয়াখালী পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আবদুল করিম বলেন, ‘মোহাম্মদ আলী পৌর স্বেচ্ছাসেবকলীগের দুর্যোগ ও ত্রাণবিষয়ক সম্পাদক ছিলেন। তার হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে পুলিশ অভিযান চালিয়ে আজ ভোরে নিহতের চাচা ইকবালকে আটক করা হয়েছে।বলে জানান সুধারাম মডেল থানার ওসি শাহেদ উদ্দিন 

আটকৃত ইকবালকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘এ ঘটনায় নিহত পরিবারের পক্ষ থেকে লিখিত অভিযোগ পাওয়ার পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে তারা মামলা করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

Leave A Reply

Your email address will not be published.