ভেদরগঞ্জ পৌরসভার সাবেক মেয়র শত মানুষের উপস্থিতিতে সংবাদ সম্মেলন করলেন ।

0 84
শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ পৌরসভার শত শত মানুষের উপস্থিতিতে সংবাদ সম্মেলন করে পৌরসভার সকল দায়-দায়িত্ব বুঝিয়ে দিলেন সাবেক পৌর মেয়র ও বর্তমান ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক জনাব হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার।
গতকাল ২৪ফেব্রুয়ারী রোজ বুধবার সন্ধ্যা ৬টার সময় তাহার নিজ পুরাতন অফিসে বসে ভেদরগঞ্জ পৌরসভার ইন্জিনিয়ার ও ভারপ্রাপ্ত সচিব মোঃ কামরুজ্জামান এর নিকট সাক্ষর করে সকল দায়-দায়িত্ব হস্তান্তর করে সব কিছু বুঝিয়ে দিয়েছেন সাবেক মেয়র হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার।
গত ৩০শে জানুয়ারী তৃতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ভেদরগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নৌকার মনোনীত প্রার্থী হিসেবে মেয়র পদে নির্বাচন করেন, বার বার নির্বাচিত সফল মেয়র জনাব হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার।
কিন্তু তার ভাগ্যের সাথে লড়াই করে জিততে পারেননি। নৌকার বিরুদ্ধে গিয়ে জগ প্রতীকের বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল বাশার চোকদার এর টাকার কাছে হেরে যান মেয়র আব্দুল মান্নান হাওলাদার।
এবেপারে ভেদরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক পৌর মেয়র জনাব হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার বলেন,,
আমি মনে করি মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন যা করেন ইনশাআল্লাহ ভালোর জন্যই করেন।আমরা সকলেই মুসলমান তাই আল্লাহ কে সবাই বিশ্বাস করি। নব-নির্বাচিত মেয়র আবুল বাশার চোকদার আমার ছোট ভাইর মতো তাই আমি আশা করবো তিনি এই ভেদরগঞ্জ পৌরসভার উন্নয়নের জন্য সৎ ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাবে,,যেমনটা দীর্ঘ ১০ বছর আমি করে এসেছি। আমি আমার নিজের ঘর না সাজিয়ে এই পৌরসভাটিকে সাজিয়েছি।
তিনি আরো বলেন, আমি যখন সাবেক মেয়র আবদুল হাই সাহেবের কাছ থেকে এই পৌরসভার দায়িত্ব বুঝে নিয়েছিলাম তখন পৌরসভার রাজস্ব আয় পেয়েছিলাম মাত্র ১ লক্ষ্য ৩০ হাজার টাকা।
আজ আমি ১০ বছরে এই ভেদরগঞ্জ পৌরসভাটিকে তৃতীয় থেকে দ্বিতীয় শ্রেণিতে রুপান্তরিত করেছি, তাছারা পৌরসভার প্রতিটি রাস্তা, ঘাট, মসজিদ, মাদ্রাসা, বাজারের রাস্তা, পানির লাইন, ও ড্রেন নিষ্কাশন সহ সকল উন্নয়ন মূলক কাজ করেছি এবং এগুলো বড় বড় জাতীয় পত্র পত্রিকায় ও প্রকাশিত হয়েছে এবং টিভিতেও প্রচার হয়েছে তা আমার পৌরবাসি সবাই যানেন।
আজ আমার এই ভেদরগঞ্জ পৌরসভার রাজস্ব আয় ২০ লক্ষ টাকার ও বেশি রেখে যাচ্ছি।আগে আমার পৌরবাসিরা অনেকেই ছিলো ঠিকমতো পৌর কর দিতোনা, আমি মেয়র হওয়ার পর তাদের হাতে পায়ে ধরে বুঝিয়ে পৌর কর দেওয়ার অভ্যাস করেছি,আমি এই আজ পর্যন্ত এই পৌরসভা থেকে একটি টাকাও খাইনি বা ঘুষ নিয়ে কারো দরবার শালিসও করিনি। তাই আমি আশা করবো সৎ ও নিষ্ঠার সাথে আমাদের এই ভেদরগঞ্জ পৌরসভার দায়িত্ব পালন করবে।
এসময় প্রিয় এই নেতা ও মেয়র হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার এর জন্য সাধারণ জনগণের মধ্যে অনেকেই কান্নায় ভেঙ্গে পরেন।এবং আল্লাহ রাব্বুল বাচিয়ে রাখলে আবারও পৌর মেয়র হিসেবে আব্দুল মান্নান হাওলাদার কে দেখতে চেয়েছেন ভেদরগঞ্জ পৌরসভার সর্বস্তরের জনগণ।
Leave A Reply

Your email address will not be published.