নিউজিল্যান্ড সিরিজে কিপিং করবেন মুশফিক–নুরুল দুজনই

নিউজিল্যান্ড সিরিজে কিপিং করবেন মুশফিক–নুরুল দুজনই

0 3

মুশফিকুর রহিম জিম্বাবুয়ে সফরের টি-টোয়েন্টিতে ছিলেন না। বাবা-মায়ের কোভিড হওয়ার কারণে দেশে ফিরে এসেছিলেন। তিনি না থাকায় বাংলাদেশ দলের উইকেটকিপারের দায়িত্ব সামলেছিলেন নুরুল হাসান। দুর্দান্ত কিপিং করেছিলেন।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজেও মুশফিকের অনুপস্থিতিতে কিপারের দায়িত্ব ছিল নুরুলের কাঁধেই।

এবার নিউজিল্যান্ড সিরিজে কিপিংটা করবেন কে! নুরুল হাসানের ওপরই টিম ম্যানেজমেন্ট আস্থা রাখবেন, নাকি মুশফিককে দায়িত্ব ফিরিয়ে দেওয়া হবে।

 

 

 

আজ বাংলাদেশ দলের হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গো জানিয়ে দিয়েছেন নিউজিল্যান্ড সফরে দায়িত্ব ভাগাভাগি করে কিপিং করবেন নুরুল আর মুশফিক।

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে নুরুলের হাতেই থাকবে গ্লাভস। পরের দুই ম্যাচে মুশফিককে দেখা যাবে উইকেটের পেছনে। এরপর পঞ্চম ম্যাচে এসে নাকি উইকেটকিপারের ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

ডমিঙ্গো এ ব্যাপারে বলছিলেন, ‘সোহান প্রথম দুই ম্যাচে উইকেটকিপিং করবে। এই সিরিজে আমরা উইকেটকিপিংয়ের দায়িত্বটা ভাগাভাগি করছি। দুই ম্যাচ করে সুযোগ দিয়ে পঞ্চম ম্যাচে সিদ্ধান্ত নেব। এই ভিন্নতা থাকা ভালো। এটাই আপাতত আমাদের পরিকল্পনা।

 

 

তবে সোহান প্রথম দুই ম্যাচ কিপিং করবে।’

মুশফিক ও নুরুল— জাতীয় দলের অনুশীলনে গত কয়েক দিন দুজনকেই গ্লাভস হাতে অনুশীলন করতে দেখা গেছে। নুরুলকে ফিল্ডিং অনুশীলনও করতে দেখা গেছে।

উইকেটকিপিংয়ের সঙ্গে ফিল্ডিংয়ের প্রস্তুতিটাও নিয়ে রাখছেন নুরুল। ১ সেপ্টেম্বরের প্রথম ম্যাচের আগে মুশফিককেও নিশ্চয়ই ফিল্ডিং অনুশীলন করতে দেখা যাবে।

উইকেটের পেছনে জায়গা নিয়ে মুশফিককে প্রতিযোগিতার মুখে পড়তে হচ্ছে। কিন্তু দলে ফিরে নিজের ব্যাটিং পজিশন নিয়ে ভাবতে হচ্ছে না তাঁকে। কোচ বলছিলেন, ‘মুশফিকের ব্যাপারে যে সিদ্ধান্ত, সে চার নম্বরে ব্যাটিং করবে। সে এই জায়গাতেই সফল।

 

 

সে ইনিংস ধরে রাখতে পারে। মিডল ওভারে এসে এক-দুই রান নিতে পারে। ম্যাচটাও শেষ করে আসতে পারে। তাঁকে দলে পাওয়া আমাদের জন্য ভালো খবর।’

প্রধান কোচের কাছে প্রশ্ন ছিল দলের ওপেনিং দোটানা নিয়েও। জিম্বাবুয়ে ও অস্ট্রেলিয়া সিরিজের পর লিটন দাস দলে ফেরায় কে হবে বাংলাদেশ দলের ওপেনার, এ নিয়ে যত আলোচনা।

ডমিঙ্গো অবশ্য এ ব্যাপারে পরিষ্কার কোনো উত্তর দেননি। ইনিংসের সূচনা কে করবেন, সেই উত্তরের জন্য অপেক্ষা করতে বললেন তিনি, ‘আমাদের তিনজন আছেন যারা ওপেন করতে পারে।

উইকেটের পেছনে জায়গা নিয়ে মুশফিককে প্রতিযোগিতার মুখে পড়তে হচ্ছে। কিন্তু দলে ফিরে নিজের ব্যাটিং পজিশন নিয়ে ভাবতে হচ্ছে না তাঁকে।

 

 

 

কোচ বলছিলেন, ‘মুশফিকের ব্যাপারে যে সিদ্ধান্ত, সে চার নম্বরে ব্যাটিং করবে। সে এই জায়গাতেই সফল। সে ইনিংস ধরে রাখতে পারে। মিডল ওভারে এসে এক-দুই রান নিতে পারে। ম্যাচটাও শেষ করে আসতে পারে। তাঁকে দলে পাওয়া আমাদের জন্য ভালো খবর।’

প্রধান কোচের কাছে প্রশ্ন ছিল দলের ওপেনিং দোটানা নিয়েও। জিম্বাবুয়ে ও অস্ট্রেলিয়া সিরিজের পর লিটন দাস দলে ফেরায় কে হবে বাংলাদেশ দলের ওপেনার, এ নিয়ে যত আলোচনা।

ডমিঙ্গো অবশ্য এ ব্যাপারে পরিষ্কার কোনো উত্তর দেননি। ইনিংসের সূচনা কে করবেন, সেই উত্তরের জন্য অপেক্ষা করতে বললেন তিনি, ‘আমাদের তিনজন আছেন যারা ওপেন করতে পারে। সৌম্য, লিটন ও নাঈম আছে। আগামী ২৪ ঘণ্টায় নির্বাচকদের সঙ্গে কথা বলে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেব।’

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.