দ্রুত বাকি ভ্যাকসিন পেয়ে যাবে বাংলাদেশ : দোরাইস্বামী

0 17

ভ্যাকসিন সরবরাহ করতে বাংলাদেশকে ভারতের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ চেষ্টা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম দোরাইস্বামী।

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রম কুমার দোরাইস্বামী বলেছেন, করোনাভাইরাস মহামারী মোকাবিলায় ভারতের কাছ থেকে তিন কোটি ডোজ কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন কেনার চুক্তি করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশকে প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ করে কোভিশিল্ড ভ্যাকসিন দেয়ার কথা। বুধবার পর্যন্ত দুই ধাপে মাত্র ৭০ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন পেয়েছে বাংলাদেশ। আর ভারত সরকার উপহার হিসেবে দিয়েছে ৩২ লাখ ডোজ ভ্যাকসিন। চুক্তি অনুযায়ী, বাংলাদেশ খুব দ্রুত বাকি করোনার ভ্যাকসিনগুলো পেয়ে যাবে।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে ৪ দিনের ভারত সফর শেষে  আখাউড়া চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন হয়ে সড়ক পথে ঢাকায় ফেরার সময় সাংবাদিকদের তিনি এ কথা বলেন।

দোরাইস্বামী বলেন, দুই দেশের সম্পর্ক অনেক উন্নত। কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের জন্য দুই দেশের সম্পর্কে বাধা পড়বে না। এ মুহূর্তে ভারতে নিজেদেরই টিকার সংকট রয়েছে। উৎপাদন বাড়ানো হচ্ছে। শিগগিরই বাংলাদেশেও টিকা সরবরাহ করা হবে।বাংলাদেশের সাথে ভারতের নিবিড় সম্পর্ক রয়েছে। এ কারণেই অন্যান্য দেশের চেয়ে বাংলাদেশের সাথে বেশি ভ্যাকসিন সরবরাহ চুক্তি করা হয়েছে।তিনি  উল্লেখ করে আরবলে, চুক্তি অনুযায়ী বাকি ভ্যাকসিনগুলো ক্রমান্বয়ে সরবরাহ করা হবে ।

এছাড়াও তিনি বলেন, ‘সারা বিশ্বে ভ্যাকসিন সরবরাহের ঘাটতি রয়েছে। সরবরাহের তুলনা চাহিদা অনেক বেশি। যে পরিমাণ সরবরাহ আছে সেটা নিয়ে আমরা সবাই ব্যবস্থাপনার চেষ্টা করছি। আমরা সর্বোচ্চ চেষ্টা করছি। দেখা যাক, আমরা কতটা সহায়তা করতে পারি।  দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের আওতায় পেয়েছে আরও ৩৩ লাখ ডোজ। বাংলাদেশে টিকাদান কর্মসূচি অব্যাহত রাখতে আমরা ভ্যাকসিন সরবরাহের সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি।’

ভারতীয় হাইকমিশনার দোরাইস্বামী সফর শেষে সস্ত্রীক চেকপোস্টে পৌঁছালে তাদের স্বাগত জানান আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. নূর এ আলম ও আখাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান।

Leave A Reply

Your email address will not be published.