বিয়ে ও তালাকের ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন ডিজিটালাইজেশনের ব্যবস্থা গ্রহণ নির্দেশ : হাইকোর্ট।

1 45

বিয়ে ও তালাকের ক্ষেত্রে রেজিস্ট্রেশন ডিজিটালাইজেশনের জন্য পারিবারিক জীবনের বৃহত্তর সুরক্ষায় কেন্দ্রীয় একটি ওয়েবসাইট প্রতিষ্ঠাসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না, জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।জনস্বার্থে করা এক রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে মঙ্গলবার বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এই রুল দেন। 

বিবাহ ও তালাকের ক্ষেত্রে ডিজিটালাইজ রেজিস্ট্রেশনে পদক্ষেপ নিতে নির্দেশনা চেয়ে ক্রিকেটার নাসিরের স্ত্রী তামিমা সুলতানার আগের স্বামী রাকিব হাসানসহ তিন ব্যক্তি ও একটি সংগঠন গত ৪ মার্চ রিটটি করেন। অন্য রিটকারীরা হলেন ঢাকার উত্তর কমলাপুরের বাসিন্দা সোহাগ হোসেন, নোয়াখালীর কাশিপুরের বাসিন্দা কামরুল হাসান ও এইড ফর ম্যান ফাউন্ডেশন।

উক্ত আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী ইশরাত হাসান। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ মো. রাসেল চৌধুরী।এর আগে বিয়ে ও তালাক রেজিস্ট্রেশন ডিজিটালাইজেশন করার জন্য গত ২২ ফেব্রুয়ারি সংশ্লিষ্টদের প্রতি আইনি নোটিশ দেয়ার পরও পদক্ষেপ না নেয়ায় এ রিট আবেদন করা হয়।

রিট আবেদনে বলা হয়, বর্তমানে যে পদ্ধতিতে বিবাহ ও বিচ্ছেদের ঘটনা রেজিস্ট্রেশন করা হয়, তা ডিজিটালাইজেশন না করার কারণে অসংখ্য প্রতারণার ঘটনা ঘটছে। আগের বিয়ে গোপন রেখে ডিভোর্স না দিয়েই নতুন করে বিয়ে করার ঘটনাও ঘটছে। ফলে সন্তানের পিতৃপরিচয় নিয়েও জটিলতা সৃষ্টি হচ্ছে। বিবাহ সংক্রান্ত অপরাধ বেড়ে অসংখ্য মামলার জন্ম নিচ্ছে। এ কারণে বিয়ে ও ডিভোর্স রেজিস্ট্রেশন ডিজিটালাইজেশন পদ্ধতিতে হওয়া প্রয়োজন। ছবিসহ বিয়ে ও ডিভোর্স ডিজিটালাইজেশন করলে সংশ্লিষ্ট নারী বা পুরুষের জাতীয় পরিচয়পত্র নম্বর দিয়ে সার্চ করলেই সব তথ্য বেরিয়ে আসবে। এতে প্রতারণার হাত থেকে অসংখ্য মানুষ রক্ষা পাবে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর উত্তরার একটি রেস্তোরায় নাসির ও তামিমার বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হয়। তামিমা সুলতানা তার সাবেক স্বামী রাকিব হাসানকে ডিভোর্স না দিয়েই ক্রিকেটার নাসির হোসেনকে বিয়ে করেছেন-এই অভিযোগে উত্তরা পশ্চিম থানায় সাধারণ ডায়েরি করেছেন তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান। এ নিয়ে আদালতে মামলাও হয়েছে।

1 Comment
  1. […] নিহত রাকিব হোসেন লক্ষ্মীপুর পৌর শহরের মজুপুর এলাকার বাসিন্দা নুরুল ইসলামের ছেলে। সে শহরের মটকা মসজিদ এলাকায় তার বড় ভাইয়ের সাথে যৌথ (ভাঙ্গারী) ব্যবসা করতেন বলে জানা যায়। […]

Leave A Reply

Your email address will not be published.