জলঢাকায় পৌর নির্বাচনে নাগরিক সমাজ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী বাবলু বিজয়ী।

1 47
জলঢাকায় পৌর নির্বাচনে নাগরিক সমাজ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী বাবলু বিজয়ী।সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে নীলফামারীর জলঢাকা পৌর নির্বাচনে সাবেক ও বর্তমান মেয়র প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি ভোট যুদ্ধে পৌরবাসী তাদের পছন্দের প্রার্থীকে বিজয়ের মালা পরিয়ে পৌর পিতার স্বীকৃতি দিলেন। ক্ষমতাসিন দলের নৌকা প্রতিক ও বি.এন.পি’র ধানের শীষ প্রতিককে লাপাত্তা করে বিজয়ের মালা পরলেন জলঢাকা নাগরিক সমাজ সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক পৌর মেয়র ইলিয়াস হোসেন বাবলু । তৃতীয় ধাপের পৌর নির্বাচনে ৩০শে জানুয়ারী জলঢাকা পৌরসভার নির্বাচন শান্তি পুর্ণ ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। কোন ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ছাড়াই অবাধ, সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশের মধ্যদিয়েই ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন ভোটাররা।
নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ছিল তৎপর। । এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাধারন ভোটারদের মাঝে ছিল উৎসাহ উদ্দীপনা। সকল অরাজকতাকে পাশকাটিয়ে প্রিয় নেতা ও ব্যাক্তি কে মেয়র হিসাবে পেয়ে আনন্দিত পৌরবাসী। এবারের পৌর নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডে কেন্দ্র ছিল ১৫টি এবং ভোট গ্রহনের জন্য বুথ নির্ধারন করা হয়েছিল ১শতটি। নির্বাচন সুষ্ঠকল্পে ১৫জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১শতজন সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও ২শতজন পুলিং অফিসার নিয়োগ দেওয়া হয়েছিলো। এছাড়া ‌র‌্যাব, বিজিবি,পুলিশ ও আনছার বাহিনীসহ মোট ৪ স্তরের নিরাপত্তা বাহিনী সর্বদায় নিয়জিত ছিল।
অন্যদিকে ভোট কেন্দ্র গুলোতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট দ্বায়িত্ব পালন করেছেন এবং ভোট কেন্দ্রগুলি পরিদর্শন করেছেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধূরী, পুলিশ সুপার মোখলেছুর রহমান বি.পি.এম-পি.পি.এম, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব হাসান, থানা অফিসার ইনচার্জ ওসি মোস্তাফিজুর রহমান। সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীন টানা ভোট গ্রহন চলে উৎসবমুখর পরিবেশে। সুষ্ঠ ভোট গ্রহন সম্পুর্ন করায় এ নির্বাচনে ভোটাররা নির্বাচন অফিসের ভূয়সী প্রসংশা করেছেন।
কাউন্সিলর প্রার্থীর ভোট গননা নিয়ে সমস্যার সৃষ্টি হওয়ায় রাত ১২টায় বে-সরকারী ভাবে ফলাফল ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাচন অফিস রিটার্নিং কর্মকর্তা । নির্বাচনি ফলাফল প্রকাশ করেন জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং অফিসার জলঢাকা ফজলুল করিম। উক্ত নির্বাচনী ফলাফলে নাগরিক সমাজ সমর্থিত নারিকেল গাছ প্রতিক ইলিয়াস হোসেন বাবলু ১৪ হাজার ৭শত ৯৮ ভোট পেয়ে বে-সরকারি হিসাবে মেয়র নির্বাচিত ঘোষনা করেন । তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী জাতীয়তাবাদী দল বি.এন.পি সমর্থিত ধানের শীষ প্রতিক বর্তমান মেয়র ফাহমিদ ফয়সাল চৌধূরী কমেট পেয়েছে ১০ হাজার ৬শত ০৮ভোট।
এছাড়া ক্ষমতাসিন আওয়ামিলীগ সমর্থিত নৌকা প্রতিক মোহসীন আলী মাষ্টার পেয়েছে ৭শত ৬৫ ভোট, জাতীয় পার্টি সমর্থিত প্রার্থী লাঙ্গল প্রতিক আফরোজা পারভিন পেয়েছে ৪২ ভোট, স্বতন্ত্র প্রার্থী জগ প্রতিক শাহ্ মোঃ জিয়াউর রহমান ( জিয়া চৌধূরী ) পেয়েছে ৫শত ৮৫ ভোট এবং অপর স্বতন্ত্র প্রার্থী মোবাইল ফোন প্রতিক সাবিনা আক্তার পেয়েছে ১শত ২২ ভোট।
উল্লেখ্য, জলঢাকা পৌরসভার নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন ৬জন প্রার্থী, পুরুষ কাউন্সিলর পদে ৪২ জন ও মহিলা সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করেছিলেন ১৯জন প্রার্থী। নির্বাচন বিষয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিসার উজ্জল হোসেন এ প্রতিবেধক কে জানান, এবারের পৌর নির্বাচনে জনসাধারণের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণে মোট ৮১.০৩% ভোট কাষ্ট হয়েছে। আমরা আশাবাদী যে, আগামী নির্বাচন গুলোতেও এমন নির্বাচনী ফলাফল বলবৎ থাকবে।
1 Comment
  1. […] রবিবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল ১০ টার সময় বরগুনা সিভিল সার্জন সম্মেলন কক্ষে বাংলাদেশের বেসরকারি এনজিও […]

Leave A Reply

Your email address will not be published.