একই সাথে আজ পহেলা ফাল্গুন ও বিশ্ব ভালোবাসা দিবস।

0 63

একই সাথে আজ পহেলা ফাল্গুন ও বিশ্ব ভালোবাসা দিবস।এই দুই উৎসবকেই ঘিরে আজ জোড়া উৎসবের আমেজ।আজ এই বসন্তের জাগ্রত দ্বারে।বাঙালি প্রতি বছরই ষড়ঋতুর এই দেশে উৎসবমুখর এই বসন্তের অপেক্ষায় থাকে।

বসন্ত মানে পূর্ণতা। বসন্ত মানে নতুন প্রাণের কলরব। বসন্ত এলে গাছে গাছে ফুলে ফুলে ভরে ওঠে চারদিকে ।এই বসন্ত এলেই গাছে গাছে পলাশ আর শিমুলের মেলা চলে অবিরত।শনিবার থেকেই দেশজুড়ে দেখা গেছে বসন্ত উৎসবের আমেজ।বিভিন্ন জায়গায় হচ্ছে  সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং সঙ্গিত।

মহামারী করোনার কারণে সীমিত পরিসরে উৎসব করার নির্দেশনা থাকলেও মানুষের বাঁধ ভাঙ্গা উচ্ছ্বাস যেন ছড়িয়ে পড়েছে নিয়মের বেড়াজাল ডিঙিয়ে।

কিংবা কবি জীবনানন্দ দাশের মতো প্রেমিক হৃদয় বলে উঠবে : ‘হৃদয়, তুমি সেই নারীকে ভালোবাসো, তাইআকাশের ঐ অগ্নিবলয় ভোরের বেলা এসেপ্রতিশ্রুতি দিয়ে গেছে অমেয় কাল হৃদয় সূর্য হবে তোমার চেয়েও বেশি সেই নারীকে ভালোবেসে।’

ফাল্গুনের প্রথম দিন এ বছর কিছুটা অন্য রকম। বাংলা বর্ষপঞ্জির পহেলা ফাল্গুন ও ইংরেজি মাসের ১৪ ফেব্রুয়ারি মিলেছে এক সুতোয়। ফলে একদিনে দুটি উৎসব পালন করছেন এ দেশের তরুণ-তরুণীসহ সর্বস্তরের মানুষ।

পাতাঝরা এ দিন ভালোবাসার ডাক দিয়ে যায়। মনের অজান্তে ভেতর থেকে ভেসে আসে কবি নির্মলেন্দু গুণের লেখা কবিতার লাইনগুলো : ‘হয়তো ফুটেনি ফুল রবীন্দ্র-সংগীতে যতো আছে হয়তো গাহেনি পাখি অন্তর উদাস করা সুরে বনের কুসুমগুলি ঘিরে। আকাশে মেলিয়া আঁখি তবুও ফুটেছে জবা,দুরন্ত শিমুল গাছে গাছে,তার তলে ভালোবেসে বসে আছে বসন্তপথিক।’

কোকিলের কুহুতানে জাগা মুখরিত বাংলার বিস্তীর্ণ প্রান্তরে আজ পহেলা ফাগুনের দিনে হবে ভালোবাসার জয়গান। হৃদয় থেকে হৃদয়ের কথাগুলো আজ ভাষা পাবে। প্রেমিক তার প্রেমিকাকে কিংবা প্রেমিকা তার প্রেমিককে আমি তোমাকে ভালোবাসি কথাটি প্রকাশ করবে ‘হ্যাপি ভ্যালেনটাইন’স ডে’ উচ্চারণ করে।

এছাড়াও দেশের নানা জায়গায় বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো নাচ, গান, আবৃত্তিসহ নানা আয়োজনে পহেলা ফাগুন ও ভ্যালেনটাইন’স ডে উদযাপন করবে। তবে করোনা মহামারির কারণে এবারের সব আয়োজন থাকবে স্বল্প পরিসরের ও সীমিত সময়ের জন্য।

 

 

Leave A Reply

Your email address will not be published.