৬ হাজার কেজি জাটকাসহ নারায়ণগঞ্জে ট্রলার জব্দ

0 7

শীতলক্ষ্যা নদীতে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৬ হাজার কেজি জাটকাসহ একটি ট্রলার জব্দ করা হয়েছে।

 ২৬টি ড্রামের ভেতর জাটকাগুলো লুকিয়ে নৌপথে চাঁদপুর থেকে নারায়ণগঞ্জে যাচ্ছিল। পথে মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর নৌ-পুলিশের সদস্যরা ট্রলারটিকে ধাওয়া করে।মুন্সিগঞ্জের পদ্মা ও মেঘনা নদীতে জাটকা নিধনের হিড়িক পড়ে গেছে। ছোট এই ইলিশ শিকার করে পাঠানো হচ্ছে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন হাট বাজারে। স্থানীয়দের অভিযোগ, মৎস্য বিভাগের নজরদারির অভাবেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অবাধে জাটকা নিধন হচ্ছে। তবে, কাউকে আটক করা যায়নি।আজ ভোররাত ৩টার দিকে নারায়ণগঞ্জের ৫ নম্বর ঘাট থেকে এসব জাটকা জব্দ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর নৌ-পুলিশ স্টেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)

মুন্সিগঞ্জের পদ্মা ও মেঘনা নদীতে জাটকা নিধনের হিড়িক পড়ে গেছে। ছোট এই ইলিশ শিকার করে পাঠানো হচ্ছে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন হাট বাজারে। স্থানীয়দের অভিযোগ, মৎস্য বিভাগের নজরদারির অভাবেই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অবাধে জাটকা নিধন হচ্ছে। আর মৎস্য কর্মকর্তা ও নৌপুলিশ বলছে, জাটকা নিধন বন্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মো. কবির হোসেন খান বলেছেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নৌ-পুলিশের সদস্যরা শীতলক্ষ্যায় অভিযানকালে জাটকাভর্তি ট্রলারকে আটকের চেষ্টা করে। গতিরোধ না করলে ধলেশ্বরী-শীতলক্ষ্যার মোহনা থেকে পাঁচ নম্বর ঘাট পর্যন্ত প্রায় আট কিলোমিটার ধাওয়া করার পর ট্রলারটি একটি ঘাটে নোঙর করে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।’কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি’ উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘সেসময় ২৬টি ড্রামভর্তি প্রায় ছয় হাজার কেজি জাটকা জব্দ করা হয়।’

ধারণা করা যাচ্ছে, চাঁদপুর থেকে এসব জাটকা বিভিন্ন নৌযানের মাধ্যমে নারায়ণগঞ্জ অংশে আনার পর পরিবহণের মাধ্যমে ঢাকার বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হচ্ছিল।’তিনি আরও জানিয়েছেন, আজ সকাল ১১টার দিকে জব্দকৃত জাটকা মাদ্রাসা, এতিমখানা ও গরিবদের মধ্যে বিতরণ করা হয়েছে।

আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত দেশে জাটকা নিধন বন্ধ ঘোষণা করেছে সরকার। জেলা মৎস্য বিভাগের তথ্য মতে, ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত জাটকা বিরোধী ৪৫টি অভিযানে ৩৬ মেট্রিক টন জাটকা জব্দ হয়েছে।

Leave A Reply

Your email address will not be published.